ডাঃ মোঃ আহছানুল কবীর (শাহীন)

এমবিবিএস, বিসিএস (স্বাস্থ্য), এমআরসিপি (মেডিসিন) লন্ডন, এমডি (কার্ডিওলজি) বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (পিজি হাসপাতাল), ঢাকা, -সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, সাতক্ষীরা।

হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ | মেডিসিন বিশেষজ্ঞ | বাত ব্যাথা প্যারালাইসিস ও স্পাইন রিহ্যাব বিশেষজ্ঞ

 যে সকল রোগের চিকিৎসা করা হয়
হার্ট এ্যাটাক/হার্টব্লক, বুকে ব্যাথা।
উচ্চ রক্ত চাপ (হাইপারটেনশন)।
হাঁটতে হাপিয়ে যাওয়া/হার্ট ফেইলিওর।
অ্যাঞ্জিওগ্রাম, রিংপ্রেসমেকারওবাইপাসরোগীরপরামর্শ।
হাঁটতে যেয়ে মাথা ঘুরেপরে যাওয়া।
শ্বাস কষ্টে রাতে ঘুমাতে না পারা।
বুক ধড়ফড় করা (প্যালপিটিশন)।
বাতজ্বর ও বাতজ্বর জনিত হৃদরোগ, জন্মগত হৃদরোগ।
উচ্চ রক্তচাপ।
নিম্ন রক্তচাপ।
বুকে ব্যাথা।
বুক ধড়ফড় করা।
পেটে সমস্যা।
রক্তে অতিরিক্ত চর্বি (Hyperlipidemia)।
অকারণ দুর্বলতা, ক্ষুধামন্দা, বমিভাব ও বমি হওয়া।
ঘন ঘন জ্বর আসা/কাঁপুনী দিয়ে জ্বর আসা।
প্রস্রাবে ইনফেকশন।
প্রেসার ওঠানামা।
মেডিসিন জনিত সব ধরনের রোগ বিশেষজ্ঞ।
ব্যাক এন্ড নেক পেইন (Spine) কেয়ার।
জয়েন্ট পেইন কেয়ার (কাঁধ), (হাঁটু)।
বাতরোগ চিকিৎসা ও রিহ্যাবিলিটেশন।
স্পোর্টস ইনজুরি এন্ড অর্থোপেডিক মেডিসিন রিহ্যাবিলিটেশন।
ঘাড় ও পিঠ ব্যাথা, ব্যাথা হাতের দিকে ছড়িয়ে পড়া, হাতে চিলিক মারা, ঝিম ঝিম-শিনশিন করা বা অবশ মনে করা।
হাতের নার্ভ বা স্নায়ু আটকে যাওয়ার কারনে রাতের বেলা হাত ঝিন ঝিন বা অবশ/ভার বা ওজন হয়ে যাওয়া (CTS), এমনি ভাবে পায়ের পাতা ঝিন ঝিন বা অবশ লাগা (TTS)।
হাঁটু, ঘাড় ও কোমড় বা মেরুদণ্ডের ক্ষয়জনিত সমস্যা।
কাঁধের শোলডার জয়েন্ট আটকে যাওয়া, হাত তুলতে অসমর্থ হওয়া বা পিঠ চুলকাতে, মানি ব্যাগ তুলতে বা মহিলাদের চুলের খোপা বাঁধতে কষ্ট হওয়া, রাতে ব্যাথা বেড়ে যাওয়া (ফ্রোজেন শোলডার)।
গিড়ায় গিড়ায় ব্যাথা, গিড়া ফুলে যাওয়া রাতে বা সকালে আঙ্গুল মুটি করতে কষ্ট হওয়া, গিড়া স্টিফ বা শক্ত হয়ে যাওয়া, এবং বেলা বাড়লে ধীরে ধীরে আরাম বোধ করা (আর্থ্রাইটিস/বাতরোগ)।
কব্জিতে বা কনুইতে ব্যাথা, ওজন তুলতে বা কাপড় নিংড়াতে কষ্ট হওয়া।
পিঠ, কোমড়ে ব্যাথা, সকালে ও শেষ রাতে দীর্ঘদিন ধরে কোমড় জ্যাম হয়ে থাকা, নুইতে কষ্ট হওয়া এবং বেলা বাড়লে, ধীরে ধীরে আরাম বোধ করা (বাত রোগ/AS)।
কোমড় ব্যাথা, ব্যাথা পায়ের দিকে ছড়িয়ে পড়া, মাঝে মাঝে হাঁটতে গেলে পা ভার বা ওজন হয়ে যাওয়া এবং এর ফলে বসতে ইচ্ছে করা এবং পরে আবার হাঁটতে শক্তি পাওয়া, পায়ে শিনশিন করা, বিদ্যুতের মত ঝিলিক মারা, হাঁটতে না পারা (সায়েটিকা)।
হীপে বা হাঁটুতে ব্যাথা, হাঁটু ফুলে যাওয়া, নিচে বসতে গেলে দাঁড়াতে কষ্ট এবং দাঁড়াতে গেলে বসতে কষ্ট হওয়া। হাঁটুর ক্ষয় হয়ে যাওয়া।
পায়ের গোড়ালীতে ব্যাথা। সকাল বেলা পা বাড়াতে প্রথম দিকে ভীষণ কষ্ট এবং পরে হাঁটতে অল্প আরাম বোধ করা, গোড়ালীর পিছনে ব্যাথা ও ফুলে যাওয়া।
খেলাধুলাজনিত আঘাতের কারণে যে কোন ইনজুরী (লিগামেন্ট, টেনডন, মাংসপেশী, মিনিসকাস)।
অর্থোপেডিক প্লাস্টার খোলার পরে জয়েন্ট নাড়াতে কষ্ট হওয়া শক্ত বা স্টিফ হওয়া।
হাড়ের লবন কমে যাওয়া ও মেরুদণ্ডের হাড় ভেঙ্গে বা চুপসে যাওয়া (হাড় ফোপড়া রোগ)।
শরীরের কোন অংশে দুর্বল লাগা, মুখের একদিক বেকে যাওয়া, মুখের খাবার একদিকে আটকে যাওয়া, কথা বলতে কষ্ট হওয়া।
স্ট্রোক, স্পাইনাল কর্ড ইনজুরী, ব্রেইন ইনজুরী বা যে কোন নিউরোলজিক্যাল কারণে প্যারালাইসিস হওয়া এবং শক্তি কমে যাওয়া।
প্যারালাইসিস
 পরিদর্শন ফি

নতুন রোগী ৳ ৫০০

পুরাতন রোগী ৳ ৪০০

 চেম্বার সময়সূচী
ঠিকানা  স্পন্দন ডায়াগনস্টিক সেন্টার, সাতক্ষীরা।
 শনিবার 
     দুপুর ২:৩০টা হতে রাত ৮:০০টা
 রবিবার 
     দুপুর ২:৩০টা হতে রাত ৮:০০টা
 সোমবার 
     দুপুর ২:৩০টা হতে রাত ৮:০০টা
 মঙ্গলবার 
     দুপুর ২:৩০টা হতে রাত ৮:০০টা
 বুধবার 
     দুপুর ২:৩০টা হতে রাত ৮:০০টা
 বৃহস্পতিবার 
     দুপুর ২:৩০টা হতে রাত ৮:০০টা
অথবা কল করুন।

 ০১৯০৬৩৯৯৪৯৬

 ০১৯০৬৩৯৯৪৯৭

 ০১৯৪৬১০২১০২

সময়ঃ সকাল ৮:০০টা হতে রাত ৯:০০টা
শনিবার হতে বৃহঃস্পতিবার