বিস্তারিত পোস্ট

রাজশাহীর সেরা জেনারেল ও ল্যাপারোস্কোপিক সার্জারি বিশেষজ্ঞ


প্রকাশিতঃ 14 March, 2022, বিভাগঃ সকল ডাক্তার, পঠিত হয়েছেঃ ৯১০ বার
ডাঃ মোঃ সাইফুল ইসলাম (রনি)
জেনারেল ও ল্যাপারোস্কোপিক সার্জারি বিশেষজ্ঞ
এমবিবিএস, বিসিএস (স্বাস্থ্য), এমএস (সার্জারি), সার্জারি বিশেষজ্ঞ - রাজশাহী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল, রাজশাহী।
 

ডাঃ ফারহান ইমতিয়াজ চৌধুরী
জেনারেল ও ল্যাপারোস্কোপিক সার্জারি বিশেষজ্ঞ,
পায়ু রাস্তা ও মলদ্বার বিশেষজ্ঞ সার্জন,
ব্রেষ্ট সার্জন
এমবিবিএস (ঢাকা মেডিকেল কলেজ), বিসিএস (স্বাস্থ্য), এফসিপিএস (সার্জারি), এফআইএজিইএস (ইন্ডিয়া) - রাজশাহী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল, রাজশাহী।
 

সহকারী অধ্যাপক ডাঃ এস এম আহসান শহীদ
জেনারেল ও ল্যাপারোস্কোপিক সার্জারি বিশেষজ্ঞ,
শিশু সার্জন বিশেষজ্ঞ
এমবিবিএস, এফসিপিএস (জেনারেল সার্জারি), এমএস (পেডিয়াট্রিক সার্জারি), পিএইচডি (হাইপোস্প্যাডিয়াস সার্জারি), ট্রেনিং ফেলো: অ্যাডভান্সড ল্যাপারোস্কোপি সার্জারি এবং প্রক্সিমেট স্ট্যাপলিং, ভারত। নবজাতক সার্জারি, পেডিয়াট্রিক ল্যাপারোস্কোপি এবং ইউরোলজি, ওসাকা শিশু হাসপাতাল, জাপান।
 

সহযোগী অধ্যাপক ডাঃ এ এন এম মোজাম্মেল হক
জেনারেল ও ল্যাপারোস্কোপিক সার্জারি বিশেষজ্ঞ
এফসিপিএস (সার্জারি), এফ-এমএএস, ল্যাপারোস্কোপিক সার্জারি (ইন্ডিয়া), সহযোগী অধ্যাপক (সার্জারি) -রাজশাহী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল, রাজশাহী।
 

সহযোগী অধ্যাপক ডাঃ মোঃ মহিবুল হাসান
জেনারেল ও ল্যাপারোস্কোপিক সার্জারি বিশেষজ্ঞ
এমবিবিএস, এমসিপিএস (সার্জারি), এমএস, পিএইচডি (সার্জারি), সহযোগী অধ্যাপক এবং বিভাগীয় প্রধান (সার্জারি বিভাগ) -রাজশাহী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল, রাজশাহী।
 

সহকারী অধ্যাপক ডাঃ মোঃ সফি উল্লাহ
জেনারেল ও ল্যাপারোস্কোপিক সার্জারি বিশেষজ্ঞ
এমবিবিএস, বিসিএস (স্বাস্থ্য), এফসিপিএস (সার্জারি) -রাজশাহী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল

সহকারী অধ্যাপক ডাঃ মোঃ শহিদুল ইসলাম
জেনারেল ও ল্যাপারোস্কোপিক সার্জারি বিশেষজ্ঞ
এমবিবিএস (ঢাকা মেডিকেল কলেজ), বিসিএস (স্বাস্থ্য), এফসিপিএস (সার্জারি), সহকারী অধ্যাপক -রাজশাহী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল, রাজশাহী।
 

ডাঃ এম এস রায়
জেনারেল ও ল্যাপারোস্কোপিক সার্জারি বিশেষজ্ঞ
এমবিবিএস, বিসিএস (স্বাস্থ্য), এফসিপিএস (সার্জারি) -রাজশাহী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল, রাজশাহী।
 


  বিভাগ

  সর্বাধিক পঠিত

হাতের-পায়ের তালুতে জ্বালাপোড়া-কি করনীয়?....



অনেক মানুষেরই হাত ও পায়ের তালুতে জ্বালা পোড়া অনুভূত হয় । বিশেষ করে রাতে বিছানায় গেলে সমস্যা বেশি দেখা যায়, এমনকি শীতের রাতে হাত ও পা কম্বল বা লেপের ভেতরে রাখতে পারেন না বাইরে রাখতে হয়। এই রোগটি ৩৫-৪০ উর্ধে লোক বিশেষ করে মহিলাদের বেশি হয়ে থাকে আবার গর্ভাবস্থায়ও অনেকের হাত-পা জ্বালা পোড়ার সমস্যা দেখা দেয়। তবে গরমকালে অনেকেরই হাত-পা জ্বালা পোড়ার প্রবণতাটি অনেকাংশে বেড়ে যায়। মাঝে মাঝে এর প্রকোপতা এত বেশি হয় যে হাত ও পায়ের পাতা দুটি যেন মরিচ লাগার মতো জ্বলে, কখনও সুঁই ফোটার মতো বিঁধে ঝিম ঝিম করে বা অবশও লাগে।
 বিস্তারিত

খুলনার লিভার এবং গ্যাস্ট্রোলজী বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের তালিকা....



গ্যাস্ট্রোলজিস্ট চিকিৎসক রোগীর গ্যাস্ট্রিক এবং লিভার সহ পেটের সকল সমস্যার চিকিৎসা করেন। গ্যাস্ট্রোলজী ডাক্তার খুঁজে নিন।
 বিস্তারিত

খুলনা মেডিকেল কলেজ এন্ড হাসপাতালের চক্ষু বিশেষজ্ঞ ডাক্তারদের তালিকাঃ....



চোখ দিয়ে পানি পড়া, কম দেখা, ছানি পড়া, চখে পানি শুন্যতা সহ সকল ধরনের চিকিৎসা এবং অপারেশন করেন চক্ষু বিশেষজ্ঞ ডাক্তার। আভিজ্ঞ চক্ষু বিশেষজ্ঞ ডাক্তার খুঁজে নিন।
 বিস্তারিত